ধর্মকানা মানুর য়ারি

১.
ধর্মান্ধ বা ধর্মকানা মানু এতা সমাজ সভ্যতার বিকাশর পথে যুগে যুগে বাধা অসি। নানান সময়ে আমি এহার প্রমাণ দেহিয়ার। বাংলাদেশর বগুড়া জিলাত গেলগা কালি (০৩.০৩.২০১৩) জোনাকগর বিতরে দেলোয়ার হোসেন সাঈদী বুলিয়া মোল্লা আগর মেইথংহান দেহেসি উনিয়া উজ্জার নাজ্জার অইল। সাঈদী মোল্লা এগোরে ১৯৭১ সালে গণহত্যা ধর্ষনরকা আদালতে ফাঁসির রায় দেসিগো। তারে সমর্থন করতারা ধর্মান্ধ জামাতে ইসলামি দল এহানে। কালি দেশর নানান জাগার মসজিদেত্ত জোনাকগত সাইদী নিকুলেসে উনিয়া ঘোষনা দিয়া ধর্মান্ধ মসরমানউতারে উত্তেজিত করলা। উত্তেজিত মানু ঔতা সড়কে লামিয়া ভাঙচুর, জ্বি লাগিয়া, লুটপাট করিয়া লইতেগা পুলিশর লগে লাগিয়া লামসাম ১০গো ইমে জাগাত গুলি খেয়া মরলা। এতার আগে রায় উহার জেরলো নানান চিটাগাংসহ নানান লয়াত হিন্দুর মন্দির গরবাড়ি জ্বালাদিয়া উচ্ছেদ করলা। এবাকা পেয়া পুরা দেশে আহৌর গজে মানু মরলা, পুলিশ মরলা আট নয়গো।

২.
ইতিহাসর বারাদে চেইলেউ ধর্মান্ধতার নিকৃষ্ট উদাহরন আবকসা দেহিয়ার। বর্ণাশ্রম হিন্দুধর্মর নিপীড়নে অতীষ্ঠ অয়া ভারতবর্ষর অন্ত্যজ মানুঔতা যেবাগা বৌদ্ধধর্ম গ্রহন করানি অকরালা উবাকা হিন্দু ঔতায় বৌদ্ধ নিধনে লামেসিলা। রাজা পুষ্যমিত্র (খৃ: পূ: ১৫০) চিংকরিয়া রাজা শশাংক ( ৬৫০ খৃষ্ঠাব্দ)র আমলেত্ত বৌদ্ধ এতা মারানি অকরলা। ৮ম শতাব্দীত শংকরাচার্যর আমলে টানা ১০ বছর বৌদ্ধ এতারে তুপকরে তুপকরে আলেইলা। শংকরাচার্যই মাতেসিল, বৌদ্ধ আগো মারানি নারলে তি কিতার হিন্দুগো? হানতে এসাদে প্রায় এক কোটি বৌদ্ধ নিশ্চিন্হ অইলা। যেতা জিংতা অয়া থাইলা তানু কতগো এশিয়ার মুঙবারাদে পলিয়া নিজরে কালকরিয়া থইলা। কতগো বৃহত্তর হিন্দুফোল্ডে আত্তীকরন অইল। বাকীউতা দলিতা অয়া কোনাকোনসেলেদে ছিতারিয়া থাইলা। বৌদ্ধ তুমনির বাদে বঙ্গর সাহিত্য, সংস্কৃতি বারো জ্ঞানচর্চার ক্ষেত্রত শুণ্যতা দেহাদেসিল। এসাদে শুণ্যতার বিতরে আরবেত্ত মসরমান আয়া হমাসিলাগা। তানু দলিত অন্ত্যজ শ্রেনীর মানুরে টার্গেট করিয়া নিজর ধর্মবিস্তার করেসিলা। পিসেদে হিন্দুধর্মর মানু ঔতারে নানানভাবে উৎপীড়ন করলা। হিন্দু বারো মসরমানর বিতরে আগরে আগই ঘৃনার সংস্কৃতি উহান চুড়ান্ত রূপ পেয়া ১৯৪৭ সালে ধর্মর ভিত্তিলো দেশভাগ অইল।

৩.
হানতে ধর্মান্ধতা এহান ইমে ধর্মে ধর্মে বিরোধ হংকরেদের। ধর্মকানা মানু উতারে লারাদেনা নুঙেই। ইমে ‘নারায়ে তাকবীর’ নাইলে ‘জয় শ্রীরাম’ মাতলে লইল। ভারতর সাদে বিজ্ঞান প্রযুক্তিত উন্নত দেশ আহাত গনেশর মুর্তিগই সেলকম পিয়ের উনিয়া পরল্লেই করলা। বাংলাদেশেউ লেইসাঙর দৌয়ে সেলকম পিতারা উনিয়া গুজব নিকুলেসিল। ধর্মর এরে সেন্টিমেন্ট এহান মানুরাং হবানেই কামে প্রয়োগ করানিরকা জাং তুলিয়া আসি রাজনৈতিক অর্থনৈতিক সুবিধাবাদী শ্রেণীআহানে। মানুর বিতরে ঘৃনা বরাদিয়া উগ্রতা সৃস্টি করানি অকরের ধর্মরেলো নানান কিচ্ছাকাহিনী হংকরিয়া। এসাদে বাবরি মসজিদলো রক্তারক্তি অইল, গুজরাটে মানু আকতায় আকতার লগে সেদাসেদি দিলা।

৪.
ধর্মপালন করিক, ধর্মর দর্শন বারো মানবিক শিক্ষার য়ারিউতা গ্রহন করিক কিন্তু অন্ধ অয়া নাগই।

ঢাকা  ০৪.০৩.২০১২

আমার সমাজর কবি লেখক এতার কপাল

১.
আমার সমাজর কবি লেখক এতার কপালর কিরৌ হবাহান। নিজর ভাত খেয়া, নিজর গাটর রূপা তিংকরিয়া, নিজে দ্বায়িত্ব নিয়া, প্রেসে দাবদা দাবদি করিয়া ছাপেইতারা ঔতা মানুয়ে লনা না মনেইতারা, লইতারা ঔতাও পাকরানি না মনেইতারা। মোবাইলে হারদিন ৫০/১০০ টাকা রিচার্জ করতে সমস্যা নেই, পুজার চান্দা ৫০০ টাকা দিতেউ সমস্যা নেই- লেইরিক আহান লইতে মিহুলগৎ থুক করের। জাতহারনরকা ঠারহানরকা রাতিদিন পরিশ্রম করিয়া সৃষ্টি করতার সাহিত্য উতার কোন মূল্যায়ন নার, বরং করুনার দৃষ্টিলো চেইতারা কুনো কুনোতায়। মানু আগো লেখকগো বুল্লে অগোর সমন্ধে সমাজর ধারনাহান সমসময় নেগেটিভ। বড় বাগরর লেখকগো, লিখালিখি করিয়া করেবেলতই! কবি সাহিত্যিক এতা বপতাই লেইরা হানতে সমাজর ডাঙর থাকে কবি সাহিত্যিকর মর্যাদা নেই, থাইলেউ ঔতার লগে ব্যক্তিস্বার্থ জড়িত থার।

২.
ইমারঠারর লেইরিক আহান ফেরি করাত গেলেগা মাততারা, “তোমার এতা পাকরানির সময় নেই”, “মানুর ঠার পাকরানি হিন”, “হুদ্দা ইমে কবিতা গল্প লিখরাই হানতে, কিসাদে উন্নতি করানি অকরবো অসাদে কথা লিখেই” ইত্যাদি। টিলিভিশনে নাটক সিরিয়াল খেলা চানার লম্বা সময় থার, আমার ঠারর লেইরিক আহান উল্টেয়া চানার সময় নেই। কুনো কুনো মানুরাং নিজর ঠারহান পাকরে নারানি এহান গর্বহান অসে, অথচ বাংলা হিন্দি ইংলিশ পাকরানি টটরানি জানানি এহানে স্ট্যাটাস বাড়ের। বারো সমাজ আহার উন্নতি এহানতে হাবিবারাদে অনা থক, অর্থনৈতিক উন্নতির লগে সামাজিক সাংস্কৃতিক উন্নতি অহানউ দরকারি। সমাজ সংস্কৃতি সভ্যতা হাবির মুলগতে হৌ ভাষা সাহিত্য।

৩.
ট্রানজিশন পিরিয়ড আহান পার কররাং সাৎ আমি। এহাত নানান ভাঙচুর বিনির্মাণ অয়া টিকলেতে টিকলাং নাইলে মিমুৎ অনা ঔহানই আমার ভবিতব্যহান।

ঢাকা  ০৫.১০.২০১২

চিন্তা বারো মননশীলতার জগত

১.
কিয়া হারনেই দিন যারগা মাহেই চিন্তা বারো মননশীলতার জগতেত্ত সমাজ এহান দুরেই অয়া যারগা। বিশেষ করিয়া নুয়া প্রজন্মরাং চিন্তার দৈন্যতা বিষয় এহান প্রকট অয়া দেহাদেসে। আমার তরুন প্রজন্মরাং সামাজিক, বৈশ্বিক, রাজনৈতিক চেতনার কোন চিনৎ আহান নাদেহিয়ার। ফেসবুকে মোর বন্ধু তালিকাৎ ৩০০+ সিংহ/সিনহা আছি। দুগো আ’গ ব্যতিক্রম বাদ দিলে কোনগরাংতো নাদেখলু চিন্তাশীল কথা আহান বা সমাজচেতনা বা রাষ্ট্রচেতনামুলক য়ারি আহান নিকুলতে। তানুর চিন্তা ইমে হিন্দী সিনেমা, খেলাধুলা বা প্রেমপীরিতির য়ারিপরির বিতরে সীমাবদ্ধ। অথচ তানুর সমবয়সী বাঙালি শৌ আগর সমাজচেতনা, সমকালীন রাজনীতি, দর্শন, অর্থনীতি, সাহিত্য, সাংস্কৃতিক জ্ঞান অহান দেখলে আচানক অনা লাগের।

২.
আকেইমাউ খালকরৌরি, কিয়া আমার সমাজর বিতরেউ এসাদে শৌ নাপেয়ারতা? আমার শৌ মেধায় কমসিহান নাগৈ, আমার অভিভাবক এতায় শৌশুমারারে বৈষয়িক বারো চাকুরিমুখী শিক্ষার পাথর আগো চাপাদিয়া তানুর মেধা মননর বিস্তৃতি, ক্রিয়েটিভিটি হাবি ধ্বংস করেইতারা সা’দ।

৩.
আশি/নব্বই দশকে বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরি সমাজে নিবেদিতপ্রান তরুন সমাজকর্মী দাপাআহান নিকুলেসিলা। তানু জ্ঞানচর্চা করলা, লেইরিক লেইসু তামকরলা, চিন্তা চেতনা মননর জগতে বিচরন করলা। আজি প্রাতিষ্ঠানিক ডিগ্রী লয়া আধুনিক প্রযুক্তির সুবিধা লয়াউ খামতলে পড়িয়া থাইলাঙ।

ঢাকা   ৩০.০৯.২০১২